মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ নভেম্বর ২০২১

পুঁজি বাজার সংক্রান্ত

 

বেসরকারি ইক্যুইটি, প্লেসমেন্ট শেয়ার

দেশের ব্যবসায়িক বৈচিত্র্য এবং দেশের দ্রুত শিল্পায়নের উৎসাহদানের অংশ হিসাবে, কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠার পর থেকে বেসরকারী ইক্যুইটিতে অংশীদারিত্ব ও শেয়ার প্লেসমেন্ট ইত্যাদি প্রকল্প চালু করা হয়েছে। আইসিবি এককভাবে বা বিভিন্ন ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সমন্বিত ব্যবস্থার অধীনে ইক্যুইটি অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিভিন্ন সংস্থায় বিনিয়োগ করে থাকে।

 

মার্জিন ঋণ হিসাবসমূহ

বিদ্যমান বিনিয়োগ হিসাবধারীরা বিএসইসির মার্জিন বিধি অনুসারে প্রাথমিক ও দ্বিমাত্রিক উভয় বাজার থেকে সিকিউরিটিজ কিনতে মার্জিন ঋণ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। বিনিয়োগের ঝুঁকি হ্রাস করার পাশাপাশি বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষার জন্য সুদৃঢ় ভিত্তির এবং সম্ভাবনাময় সিকিউরিটিজ কেনার জন্য প্রান্তিক ঋণ প্রদান করা হয়।

 

আইসিবি ইউনিট ফান্ড

আইসিবি ইউনিট ফান্ড দেশের প্রথম বে-মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এই স্কিমটি ১৯৮১ সালের এপ্রিলে চালু হয়েছিল, যার মাধ্যমে ক্ষুদ্র ও মাঝারি সঞ্চয়কারীরা তাদের সঞ্চয় ভারসাম্যপূর্ণ এবং তুলনামূলকভাবে কম ঝুঁকিপূর্ণ পোর্টফোলিওতে বিনিয়োগের সুযোগ পান। আইসিবি এখন পর্যন্ত প্রতি বছর ইউনিটগুলিতে আকর্ষণীয় লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এই ফান্ড ইউনিট প্রতি ৪১.০০ টাকা লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ইউনিট ফান্ড বিনিয়োগকারীরা আইন অনুযায়ী প্রযোজ্য করের সুবিধা ভোগ করেন।

 

আইসিবি ইউনিট ফান্ড, বাংলাদেশ ফান্ড সার্টিফিকেট ইত্যাদির বিপরীতে অগ্রিম

আইসিবি ইউনিট গ্রাহকদের জরুরি তহবিলের প্রয়োজনীয়তা পূরণের জন্য ১৯৯৮ সালে আইসিবি ইউনিট/মিউচ্যুয়াল ফান্ড সার্টিফিকেট এর বিপরীতে অগ্রিম প্রদান স্কিমটি চালু করা হয়। বর্তমানে আইসিবি ইউনিট ফান্ড, বাংলাদেশ ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল পেনশন হোল্ডারস্‌ ইউনিট ফান্ড এবং আইসিবি এএমসিএল ইউনিট ফান্ড সার্টিফিকেটের বিপরীতে আইসিবি অগ্রিম প্রদান করে। একজন গ্রাহক আইসিবি অফিস এবং অনুমোদিত ব্যাংকগুলির যে কোনও একটি থেকে তার ইউনিট সার্টিফিকেট লিয়েন ব্যবস্থাপনার অধীনে জমা দিয়ে প্রাথমিক সমর্পণ মূল্যের সর্বোচ্চ ৮০% অগ্রিম নিতে পারেন।

 

মিউচুয়াল ফান্ডের স্পনসর

আইসিবি মিউচ্যুয়াল ফান্ড শিল্পের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন মিউচ্যুয়াল ফান্ডের স্পনসর হিসাবে কাজ করে।

 

ট্রাস্টি এবং কাস্টোডিয়ান সেবা

ডিবেঞ্চার ইস্যু, মিউচ্যুয়াল ফান্ড এবং সিকিউরাইজড বন্ডের ট্রাস্টি এবং কাস্টোডিয়ান হিসাবে আইসিবি কাজ করে থাকে।

 

পত্রকোষ ব্যবস্থাপনা

সর্বাধিক প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী হওয়ায় আইসিবি সক্রিয় পত্রকোষ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে দেশের পুঁজি বাজারের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখে যা আইসিবির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কাজ। আইসিবি দ্বারা পরিচালিত মোট পাঁচটি পত্রকোষ রয়েছে- চারটি আইসিবির নিজস্ব পত্রকোষ এবং বাকী একটি ইউনিট ফান্ড পত্রকোষ। পুঁজি বাজারকে স্থিতিশীল করার জন্য আইসিবির ভূমিকা জোরদার করতে বাজারের চাহিদার সাথে সামঞ্জস্য রেখে সেকেন্ডারি মার্কেটে বর্ধিত বিনিয়োগ করা হয়েছে।

 

শেয়ার বাজার কার্যক্রম

আইসিবি প্রাইমারি ও সেকেন্ডারি উভয় বাজারে একটি অতুলনীয় ভূমিকা পালন করে যা শেষ পর্যন্ত পুঁজি বাজারকে প্রাণবন্ত করে তোলে। মার্চেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম যেমন পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট, ফান্ড ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি অনন্যভাবে সরবরাহ করা হচ্ছে।

 

নিম্নোক্তভাবে প্রকল্পে অর্থায়ন করা হয়ঃ

i) প্রেফারেন্স শেয়ারে বিনিয়োগ

বৈচিত্র্যপূর্ণ উপকরণসমূহ আইসিবির বিনিয়োগ কৌশলের শক্তি। প্রেফারেন্স শেয়ারে বিনিয়োগ এই অবস্থানকে নির্দেশ করে।

ii) ডিবেঞ্চার ফিন্যান্সিং

আইসিবি সম্ভবনাময় শিল্পগুলিতে ডিবেঞ্চারে অর্থায়ন করে থাকে।

iii) ইক্যুইটির বিপরীতে অগ্রিম

আইসিবি বিভিন্ন প্রকল্পে ইক্যুইটির বিপরীতে অগ্রিম প্রদান করে।

iv) লিজ ফিন্যান্সিং

আইসিবি মূলত সম্ভবনাময় কোম্পানিগুলোকে মূলধন যন্ত্রপাতি , সরঞ্জাম ও পরিবহনের জন্য লিজ সহায়তা প্রদান করে থাকে। লিজের সময়কাল, ভাড়া, চার্জ এবং অন্যান্য শর্তাদি নির্ধারিত হয় ইজারাদারের প্রয়োজনীয়তা অনুসারে সরবরাহ করা সহায়তার ভিত্তিতে।

v) বন্ড বিনিয়োগ

আইসিবি এর পোর্টফোলিওকে বৈচিত্র্যপূর্ণ করার জন্য সাব-অরডিনেটেড এবং জিরো কুপন বন্ডের মতো বিভিন্ন ধরণের বন্ড এ বিনিয়োগ করে থাকে।

 

কর্পোরেট আর্থিক পরামর্শ

আইসিবি এবং এর সাবসিডিয়ারি কোম্পানি আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড পুঁজিবাজারে শেয়ার ছাড়তে আগ্রহী সরকারি কোম্পানিগুলোকে কর্পোরেট পুনর্গঠন ও পুনর্নির্মাণ সম্পর্কিত পেশাদার ও আর্থিক পরামর্শ প্রদান করে থাকে।

 

মার্জার এবং অধিগ্রহণ

যে সকল কোম্পানি মার্জার বা অধিগ্রহণের মাধ্যমে তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণ করতে ইচ্ছুক বা যে সকল প্রকল্পগুলোর কার্যক্রম বর্তমান পর্যায়ে মানানসই নয় তারা কর্পোরেশনের সাথে যোগাযোগ করে। আইসিবি সর্বোত্তম সম্ভাব্য কার্যক্রমমূলক ফলাফল নিশ্চিত করার জন্য ব্যয় এবং আর্থিক কাঠামো গঠনের ক্ষেত্রে  পরামর্শ প্রদান করে।

 

কর্পোরেট গ্যারান্টি ইস্যু

আইসিবি ২০০২-০৩ অর্থবছরে কর্পোরেট গ্যারান্টি স্কিম চালু করেছে। আইসিবি প্রদান করে -

(i) ব্যবসায়ীদের যে কোনও টেন্ডার বা বিডিং এ অংশ নিতে সক্ষম করার জন্য বিড বন্ড গ্যারান্টি;

(ii) তাদের গ্রাহকদের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বাধ্যবাধকতা পূরণ করে ব্যবসায়ী সম্প্রদায়কে তাদের ব্যবসা সুষ্ঠুভাবে চালিয়ে যেতে সহায়তা করার জন্য পারফরমেন্স বন্ড গ্যারান্টি;

(iii) প্রাথমিক পর্যায়ে শুল্ক কর্তৃপক্ষ এবং ব্যবসায়ী শ্রেণীর মধ্যে বিভিন্ন মতবিরোধ সমাধানের জন্য কাস্টমস গ্যারান্টি প্রদান করে থাকে। গ্যারান্টিটির সীমা কমপক্ষে ২০% নগদ এবং ৮০% সহজে নগদযোগ্য সিকিউরিটির বিপরীতে বা ১০০% নগদ মার্জিনের বিপরীতে প্রদান করা হয়। 


Share with :

Facebook Facebook